বগুড়ায় একদিনে করোনা ও উপসর্গে মৃত্যু ১৭, আক্রান্ত ১৮৩

বগুড়ায় করোনায় মৃত্যুর মিছিল বেড়েই চলেছে দিনদিন। নতুন করে আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরও ১০ জন। শনিবার সকাল ৮টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়। করোনায় মারা যাওয়া ৭ জনের মধ্যে ৩ জন বগুড়ার বাকি ৪ জন অন্য জেলার। মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- বগুড়া সদরের মোজাম্মেল (৭৫),  ধুনটের সহুরা বেগম (৬৫), শিবগঞ্জের মহিউদ্দীন (৭২), সিরাজগঞ্জের জিয়াউল হক(৬৫), নওগাঁর বজলুর রশিদ (৫৩), গাইবান্ধার  মুরাদ (৪৫) এবং নাটোর মিনা খানম (৫৫)।

এদের মধ্যে মোজাম্মেল, সহুরা ও মহিউদ্দীন শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ(শজিমেক) হাসপাতালে, জিয়াউল, বজলুর ও মুরাদ সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে এবং  মিনা খানম টিএমএসএস হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বগুড়ার ডেপুটি  সিভিল সার্জন ডা: মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন রোববার সকালে অনলাইন ব্রিফিংয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়ে বলেন, মরণঘাতী ওই ভাইরাসে জেলায় নতুন করে আরও ১৮৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। অন্যদিকে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল,  শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল ও টিএমএসএস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ করোনা উপসর্গ নিয়ে তিনটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১০ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন।

ডা: তুহিন জানান, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় জেলায় আরও ৪৮৭টি নমুনা পরীক্ষায় ১৮৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রন্তের হার ৩৭ দশমিক ৫৭ শতাংশ। এদের মধ্যে সদরের ১০১ জন, শেরপুরের ২২ জন, সারিয়াকান্দির ১১ জন, নন্দীগ্রামে ১০ জন, সোনাতলায় ৮ জন, গাবতলীতে ৮ জন, শাজাহানপুরের ৬জন, ধুনটে ৫ জন, দুপচাঁচিয়ায় ৪ জন, শিবগঞ্জে ৪জন এবং কাহালুতে ৪ জন। এছাড়া একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন আরও ৮৫ জন।

তিনি জানান, শনিবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমন মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ২৮২টি নমুনা পরীক্ষায় ১০৮ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন।একই কলেজের জিন এক্সপার্ট মেশিনে ২৬ নমুনায় ১৬ জনের এবং এন্টিজেন পরীক্ষায় ১৩৮ জনের মধ্যে ৩৬ জন করোনায় শনাক্ত হয়েছেন।  এছাড়া বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৪১ নমুনায় ২৩ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

ডা. তুহিন জানান, জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১৫,৭০৭জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৩,৫৩৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৬৭ জনের। এছাড়া ১,৭০৫ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে।