বগুড়ার ৩টি হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরও ১১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১০১

টিএমএসএস’র উদ্যোগে ও মেঘনা ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় জয়পুরহাটে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বগুড়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবং উপসর্গ নিয়ে আরও ১১জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনায় সাতজন এবং উপসর্গে ৪জন মারা গেছেন। তবে করোনায় মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে দু’জন বগুড়ার বাইরের জেলার।

জেলার তিন হাসপাতালে শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়। করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- শাজাহানপুরের আসাদ আলী মন্ডল(৭৩), শিবগঞ্জের পরিমল কুমার সরকার(৬০) এবং সদরের যথাক্রমে- শহিদুল আলম(৫২), আয়েশা বেগম(৭০) ও সাখাওয়াত হোসেন(৪৮)।

এ ছাড়া বগুড়ায় কয়েকদিন সংক্রমণ কমলেও আবারও বেড়েছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৩৩১ নমুনায় নতুন করে আরও ১০১জন শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ(শজিমেক)

এর পিসিআর ল্যাবে ২৮২নমুনায় ৭৪জন, এন্টিজেন পরীক্ষায় ২০ নমুনায় ১০জন এবং টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ২৯ নমুনায় ১৭জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ৩০দশমিক ৫১ শতাংশ।

এছাড়া একই সময়ে করোনা থেকে ১৬০জন সুস্থতা লাভ করেছেন। বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন শনিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে অনলাইন ব্রিফিংয়ে জেলার করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য জানান।

ডা. তুহিন জানান, জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১৮ হাজার ৮৫৭জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৬ হাজার ৬৩৮জন এবং ৫৬৮জন মারা গেছে। এছাড়া জেলায় ১ হাজার ৬৫১জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন।