প্রফেসর ড. মোজাফ্ফর হোসেন পুন্ড্র ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি’র ভিসি নিযুক্ত

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০, ৩১(১) ধারা অনুযায়ী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাপ্লাইড ফিজিক্স এন্ড ইলেক্ট্রোনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত প্রফেসর ড. মোঃ মোজাফ্ফর হোসেনকে পুন্ড্র ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, বগুড়া-এর ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে ০৪ (চার) বছরের জন্য নিয়োগ প্রদান করেছেন।
প্রফেসর ড. মোঃ মোজাফ্ফর হোসেন শিক্ষা জীবনের প্রতিটি স্তরে অসামান্য কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। তিনি ১৯৬৯ সালে রাজশাহী বোর্ডের অধীনে নওগাঁর কে.ডি হাইস্কুল থেকে ১ম বিভাগে এসএসসি এবং ১৯৭২ সালে নওগাঁর বিএমসি কলেজ থেকে ১ম বিভাগে এইচএসসি পাশ করেন। তিনি ১৯৭৭ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এ্যাপ্লাইড ফিজিক্স এন্ড ইলেক্ট্রোনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে ১ম শ্রেণীতে বিএসসি (অনার্স) ও ১৯৭৮ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১ম শ্রেণীতে এমএসসি ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৮৬ সালে তিনি রাশিয়ার লেনিনগ্রাদ পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট থেকে পিএইচ.ডি ডিগ্রী অর্জন করেন।
শিক্ষাজীবন শেষ করে তিনি ১৯৭৯ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাপ্লাইড ফিজিক্স এন্ড ইলেক্ট্রোনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন এবং ১৯৭৯ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত তিনি লেকচারার, এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ও এসোসিয়েট প্রফেসর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৮৯ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ইউনিভার্সিটি অব সালাহ্উদ্দিন, এরবিল, ইরাক-এ এসোসিয়েট প্রফেসর হিসেবে অধ্যাপনা করেন। ১৯৯৪ সালের জুন মাস থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তিনি প্রফেসর হিসেবে কৃতিত্বের সাথে তাঁর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি অধ্যাপনার পাশাপাশি ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ আমির আলী হলের প্রভোস্ট, ২০০০ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত আইসিই বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, ২০০৪ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত এ্যাপ্লাইড ফিজিক্স এন্ড ইলেক্ট্রোনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান এবং ১৯৯৭-১৯৯৮ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, ১৯৯৪-১৯৯৫ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সিটি ক্লাবের সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ এডভান্স অব সায়েন্স, বাংলাদেশ ফিজিক্যাল সোসাইটি, ওয়ার্ল্ড ফোরাম অন এডভান্স মেটারিয়ালস্ এর লাইফ মেম্বার এবং নিউইয়র্ক অব সায়েন্স এর একজন ফেলো-মেম্বার।
তিনি দীর্ঘ ৪১ বছর শিক্ষকতা ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন গবেষণা কাজে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। এ পর্যন্ত তাঁর ইলেক্ট্রোনিক বিষয়ে ০৩টি গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ ও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্বীকৃত জার্নালে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ৪০টিরও অধিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।